টাইগাররা মাথা উঁচু করেই টুর্নামেন্ট শেষ করেছে : সাঙ্গাকারা

১৬ কোটি বাঙালিকে নতুন কিছু করে দেখানোর আশা জাগিয়ে সেমিফাইনালে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ। যদিও শেষ পর্যন্ত ম্যাচ হেরে যায় টাইগাররা। এত কিছুর পরেও অবশ্য টুর্নামেন্ট থেকে টাইগারদের প্রাপ্তি নেহাত কিছু কম নয়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল- আইসিসির সবচেয়ে বড় আসরের একটিতে প্রথমবারের মতো সেমিফাইনালে উঠাই টাইগারদের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি।

 গ্রুপ পর্বে দুর্দান্ত পারফরমেন্সের মাধ্যমে মূলপর্ব নিশ্চিত করেছিল মাশরাফি-তামিমরা। তাই তাদের যোগ্যতা নিয়ে এখন আর কেউ প্রশ্ন তুলতে পারবে না। রাইজিং টাইগার নিকট ভবিষ্যতে যে আরও চমক নিয়ে হাজির হবে সে বিষয়ে এক প্রকার নিশ্চিত ক্রিকেট বিশ্লেষকরা।

ভারতের কাছে সেমিফাইনালে বাংলাদেশের পরাজয়ের পর আইসিসির ওয়েবসাইটে  শ্রীলংকার সাবেক ক্রিকেটার কুমার সাঙ্গাকার বলেছেন,  টাইগাররা মাথা উঁচু করেই টুর্নামেন্ট শেষ করেছে। যোগ্যতার পরিচয় দিয়েই টুর্নামেন্টের মূলমপর্বে খেলেছেন মাশরাফি-তামিম ও সাকিবরা। বার্মিংহামে চমকপ্রদ এশিয়ান ডার্বি দেখেছে বিশ্ববাসী। একইসঙ্গে ফাইনালে আরও বড় ধরনের ডার্বি ম্যাচ দেখার অপেক্ষা সবার।

আয়োজক দেশের আবহাওয়া ও কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে এশিয়ার তিনটি দলের সেমিফাইনালে উন্নীত হওয়া নিয়েও বিস্ময় প্রকাশ করেছেন এই ‘গ্রেট’ ক্রিকেটার। এর জন্য তিনি দলগুলোর খেলোয়াড় ও সংশ্লিষ্ট দলগুলোর স্টাফদের প্রশংসা করেছেন।

সাঙ্গাকারা বলেন, গত কয়েক বছরে টাইগার ক্রিকেট অনেকদূর এগিয়ে গেছে। এর পেছনে ছিল চন্ডিকা হাথুরুসিংয়ের উন্নত কোচিং, সহায়ক ক্রিকেট বোর্ড ও সাকিব আল হাসানের মতো সিনিয়র খেলোয়াড়দের দলের প্রতি আত্মত্যাগ। এসবের মাধ্যমেই বাংলাদেশ ক্রিকেট দল একটি শক্তিশালী দলে পরিণত হচ্ছে। সেমিফাইনালে ওঠা বাংলাদেশের স্থিতিশীল এবং শক্তিশালী ক্রিকেট প্রদর্শনী ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপ জয়ী শ্রীলংকার দলকে স্মরণ করিয়ে দেয়।

সাঙ্গাকারা আরও বলেন, বাংলাদেশ তার বিগত দিনের পারফরমেন্সের কারণে গর্বিত ও খুশি হতে পারে। উচ্ছ্বসিত হওয়াটাই তাদের জন্য যথার্থ। তবে আগামীকে জয় করতে তাদের বোলিং শক্তিকে আরও বৈচিত্র্যপূর্ণ করে তুলতে হবে। বিশ্বকাপে তাদের ভালো পারফরমেন্সের জন্য বোলিংয়ের ধার ও বিষ বাড়ানোরও পরামর্শ দিয়েছে সাঙ্গাকারা।

ব্যাটিং ও বোলিং বিভাগে উন্নতি করতে পারলে আগামীতে ঘরে আর বাইরে সবখানেই ভালো করতে পারবে টাইগাররা আশা ব্যক্ত করেন শ্রীলঙ্কান এই প্রাক্তন লিজেন্ড।

 

[খবরটি এখান থেকে এসেছে]

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*