টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ সড়কে গাড়ির ধীরগতি

ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কের গাজীপুর অংশে আজ শুক্রবার সকাল থেকে যানবাহনের দীর্ঘ সারি রয়েছে। এতে গাড়িগুলো চলছে খুব ধীরগতিতে। ছবি : এনটিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

গাজীপুরের ঢাকা-টাঙ্গাইল ও ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যানবাহনের দীর্ঘ সারি দেখা গেছে। এতে মহাসড়কের গাজীপুর অংশের অনেক স্থানেই যানবাহন চলছে থেমে থেমে। 

আজ শুক্রবার সকাল থেকে কয়েকটি পয়েন্টে দেখা দিয়েছে থেমে থেমে যানজট। তবে প্রয়োজনের তুলনায় যানবাহন সংকটে বিড়ম্বনায় পড়েছেন ঘরমুখো যাত্রীরা।

অনেকেই বাস, ট্রাক, পিকআপ ভ্যানের ছাদে করে এবং হালকা যানবাহনে চড়ে যাচ্ছেন দূরদূরান্তে। এতে বাড়তি ভাড়াও গুনতে হচ্ছে যাত্রীদের।

হাইওয়ে পুলিশের কর্মকর্তা আবদুর রহমান জানান, সকাল থেকেই ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা, কালিয়াকৈর ও খাড়াজোড়া এলাকায় যানবাহনের চাপ বাড়তে থাকে। এতে ওই মহাসড়কে দেখা দিয়েছে যানবাহনের লম্বা সারি। ফলে চন্দ্রা ও কালিয়াকৈর অংশে থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। 

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘আজ থেকে সরকারি ছুটি। কাল ছিল ব্যাংকের শেষ কার্যদিবস। ফলে আজ যে চাপ বাড়বে, তা জানাই ছিল। আমরা চেষ্টা করছি, মানুষ যাতে নিরাপদে বাড়ি ফিরতে পারে, সেটা করার। আশা করি, কোনো সমস্যা হবে না।’

মহাসড়কে দায়িত্ব পালনরত মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চান্দনা চৌরাস্তায় যানবাহনের চাপ লক্ষ করা গেছে। এতে এই অংশ দিয়ে যানবাহন চলছে ধীরগতিতে। 

এ ছাড়া চন্দ্রা ও চান্দনা চৌরাস্তায় ঘরমুখো মানুষের রিজার্ভ করা গাড়ির লম্বা লাইন রয়েছে। অনেকেই ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকে নির্দিষ্ট গন্তব্যের গাড়ি পাচ্ছেন না। ফলে তাঁদের যেমন দুর্ভোগ বেড়েছে, তেমনি গুনতে হচ্ছে বাড়তি ভাড়া।

বাসের জন্য গাজীপুর চৌরাস্তায় দাঁড়িয়ে আছেন জামালপুরের এক যুবক (৩৫)। গাজীপুরেই একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। ছুটিতে বাড়ি যাচ্ছেন। সকাল থেকে দাঁড়িয়ে আছেন, কিন্তু গাড়ি পাচ্ছেন না। তিনি বলেন, ‘ময়মনসিংহ রুটের গাড়ি আছে, কিন্তু জামালপুরের কোনো গাড়ি নেই। তাই যেতে পারছি না। আর গাড়ির গতিও খুব ধীর। গাড়ির ভাড়াও একটু বেশি বলে জানান ওই যুবক। 

ভাড়া বেশি নেওয়ার ব্যাপারে একটি বাসের চালকের সহকারী বলেন, ‘এখন রাস্তায় খুব যানজট। খরচ বেশি। ময়মনসিংহ গিয়ে বাস নিয়ে খালি আসতে হচ্ছে। ফলে ভাড়া একটু বেশি চাচ্ছি। কোনো উপায় তো নেই।’ 

[খবরটি এখান থেকে এসেছে]

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*